বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশের সবগুলো বিভাগের প্রতিটি জেলা, উপজেলা ও কলেজপর্যায়ে সংবাদদাতা/প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যারা অনলাইন সংবাদ প্রকাশনার সাথে সংবাদ প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করতে ইচ্ছুক তারাই কেবল এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেন। আগ্রহী দক্ষ সংবাদ প্রতিনিধিদের আমাদের কাছে ই-মেইল মারফত সিভি জমা দিতে হবে। আপনার সিভি জমা দেয়ার পর salmankoeas@gmail.com থেকে প্রতিনিধি বাচাই কার্যক্রমে নিয়োজিত টিম আপনাদের সিভি পর্যালোচনা করে ই-মেইল মারফত বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে salmankoeas@gmail.com এর সাথে সংবাদ প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করতে পারবে কি না তা নিশ্চিত করবে। মোবাইল: ০১৭১১-০০৭২৭২
ব্রেকিং নিউজ :
বিজয়নগরে হানাদার মুক্ত দিবস উদযাপন।। দৈনিক ক্রাইমসিন সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের সদর উপজেলা কমিটি ঘোষণা।। দৈনিক ক্রাইমসিন মাধবপুরে উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন ।। দৈনিক ক্রাইমসিন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সহ সম্পাদক হলেন শান্ত ।। দৈনিক ক্রাইমসিন বিএনপিকে প্রতিহত করতে হবে প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী এমপি।। দৈনিক ক্রাইমসিন মাধবপুরে পঙ্গু রহিমা বেগমের একটি ঘরের জন্য আকুতি।। দৈনিক ক্রাইমসিন মেসির জন্য সিংহের মতো লড়বে আর্জেন্টিনা ।। দৈনিক ক্রাইমসিন শায়েস্তাগঞ্জ থানার নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ।। দৈনিক ক্রাইমসিন মাধবপুরের তেলিয়াপাড়া চা বাগান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে দুই মন্ত্রীর শ্রদ্ধা ।। দৈনিক ক্রাইমসিন সারাদেশে আগামী ১৫ দিন পুলিশের বিশেষ অভিযান।। দৈনিক ক্রাইমসিন

হবিগঞ্জ জেলায় জমে উঠেছে আইপিএল ও লুডুর জুয়ার আসর-দৈনিক ক্রাইমসিন

ক্রাইম রিপোর্টার :

জুয়ার আর এক টা আসর হয়ে উঠেছে আইপিএল ও লুডু।প্রতিটি ম্যাচ এ চলছে দল নিয়ে বাজি, আবার প্রতিটি ওভারে চলে  ওভার বাউন্ডারি বাজি।এক ওভারে কত রান হবে,কত উইকেট যাবে তা নিয়ে চলছে বাজি।যাকে বলা হয় এক প্রকার জুয়ার আসর।

এই জুয়ায় কারো ভাগ্য ভালো হলে টাকা পায়।আর কারো ভাগ্য খারাপ হলে সব শেষ।এ খেলা যেনো তাদের এক প্রকার জুয়ার নেশা হয়ে গেছে। তারা শুধু এই আইপিএলে নয় বিপিএল ও ছাড় দেননা।

এমনি আসর চলছে হবিগঞ্জ জেলায়,খেলা শুরু হলেই দেখা যায় প্রতিটি চায়ের দোকানে দোকানে ও প্রতিটি এলাকায় চলছে জুয়ার আসর। প্রতিটি বাজিতে ১০০০-২০০০ টাকার বাজি চলে।আবার অনেকে ফোনে ফোনে ওভার বাউন্ডারি বাজি ধরেন।এই আইপিএল যেনো হয়ে উঠেছে এক প্রকার নতুন জুয়ার আসর।

আবার আর একটা জুয়ার আসরের নাম হচ্ছে লুডু খেলা।গ্রামের প্রতিটি এলাকায় চায়ের দোকানে দোকানে বসে এই জুয়ার নতুন খেলা লুডু।ফোনের অ্যাপ ব্যবহার করে এই খেলা খেলছেন অনেকে।প্রতিটি বোর্ডে চলে ২০০০-৪০০০ টাকার বাজি।টাকা শেষ হলেই  আবার ধার করে খেলা শুরু করে। এক পর্যায় দেখা যায় রীনের বোঝা মাথায় বাড়ি ফিরে বউয়ের গহনা বিক্রি করেন।আবার অনেকেই নির্শ্য হয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়। 

এই আইপিএল ও লুডু খেলা যেনো তাদের এক প্রকার নতুন করে  নেশা হয়ে গেছে। যার নাম জুয়ার আসর।

অভিবাবকরা ঝড়ে পড়া অবহেলিত যুব সমাজ কে সুস্থ সমাজে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছেন ।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত