রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:১৩ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশের সবগুলো বিভাগের প্রতিটি জেলা, উপজেলা ও কলেজপর্যায়ে সংবাদদাতা/প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যারা অনলাইন সংবাদ প্রকাশনার সাথে সংবাদ প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করতে ইচ্ছুক তারাই কেবল এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেন। আগ্রহী দক্ষ সংবাদ প্রতিনিধিদের আমাদের কাছে ই-মেইল মারফত সিভি জমা দিতে হবে। আপনার সিভি জমা দেয়ার পর salmankoeas@gmail.com থেকে প্রতিনিধি বাচাই কার্যক্রমে নিয়োজিত টিম আপনাদের সিভি পর্যালোচনা করে ই-মেইল মারফত বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে salmankoeas@gmail.com এর সাথে সংবাদ প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করতে পারবে কি না তা নিশ্চিত করবে। মোবাইল: ০১৭১১-০০৭২৭২
ব্রেকিং নিউজ :
মেসির জন্য সিংহের মতো লড়বে আর্জেন্টিনা ।। দৈনিক ক্রাইমসিন শায়েস্তাগঞ্জ থানার নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ।। দৈনিক ক্রাইমসিন মাধবপুরের তেলিয়াপাড়া চা বাগান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে দুই মন্ত্রীর শ্রদ্ধা ।। দৈনিক ক্রাইমসিন সারাদেশে আগামী ১৫ দিন পুলিশের বিশেষ অভিযান।। দৈনিক ক্রাইমসিন জগদীশপুর যোগেশ চন্দ্র হাই স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালনা কমিটিকে ব্যাংক এশিয়ার সংবর্ধনা।দৈনিক ক্রাইমসিন মাসুদ ফাউন্ডেশনের ৫ম বর্ষে পদার্পন উপলক্ষে কেক কাটা, আলোচনা সভা ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ। মৌলভীবাজারে কর্মরত টেলিভিশন সাংবাদিকদের সংগঠন ইমজা’র নির্বাচন অনুষ্ঠিত l দৈনিক ক্রাইমসিন হবিগঞ্জের মাধবপুরে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলায় দুইজনের মৃত্যুদন্ড ।। দৈনিক ক্রাইমসিন মাধবপুর পৌর কিন্ডারগার্টেনে বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত ।। দৈনিক ক্রাইমসিন আর্জেন্টিনা জিতলে নকআউট হারলে বিদায়, ড্র করলে সমীকরণ মেলাতে হবে । দৈনিক ক্রাইমসিন

একাধিক প্রতারণা মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী মানিক বর্ধন গ্রেফতার।। দৈনিক ক্রাইমসিন

মাসুম আহমদ স্টাফ রিপোর্টার:

মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া থানা পুলিশ কর্তৃক একাধিক প্রতারনা মামলার ওয়ারেন্টভূক্ত আসামি মানিক বর্ধন গ্রেফতার হয়েছে।
গত ২১ অক্টোবর কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব মোঃ আব্দুছ ছালেক এর নেতৃত্বে এসআই/অপু কুমার দাশ গুপ্ত, এএসআই/মোঃ রুমান মিয়া, এএসআই/মোঃ আরিফুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্সসহ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে আসামি মানিক বর্ধনকে মৌলভীবাজার সদর থানাধীন শেরপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করেন।

গ্রেফতারকৃত আসামী মানিক বর্ধন কুলাউড়ার ব্রাহ্মণবাজারস্থ মেসার্স এম এন এইচ ব্রিক্স ফিল্ড এর ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তিনি বিভিন্ন ব্যবসায়ী এবং সাধারণ মানুষের নিকট কাঁচা ইট বিক্রি করে প্রায় ১৩৭ জনের কাছ থেকে অনুমান ০৮ (আট) কোটি টাকা নেয়। কিন্তু পরবর্তীতে উক্ত ইট বা টাকা না দিয়ে টাকা আত্মসাৎ করে পলাতক হন। পরবর্তীতে পাওনাদারগন তার বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে এনআইএ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় সিআর মামলা নং-১৪৮/২০, ১৫৩/২০, ১৪৩/২০, ১৫৪/২০, ১৭৩/২০, ৩৮১/২০, ২৫/২১, ১৯৯/২২, ৩৪০/২০ দায়ের করেন। উল্লেখিত মামলায় তাহার বিরুদ্ধে কুলাউড়া থানায় ০৮টি গ্রেফতারী পরোয়ানা মূলতবী ছিল। উক্ত আসামী মানুষের টাকা আত্মসাৎ করে অনেক মানুষকে নিঃস্ব ও অসহায় করেছে। আসামীকে দীর্ঘদিন থেকে গোপনীয় ভাবে নজরদারী করে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী মানিক বর্ধনকে ওয়ারেন্ট মূলে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে ভাগ করুন

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত